Contact us to get featured in Entrepreneurs Magazine TSM | Call: 01684722205

চেষ্টাই আনন্দ, আমার “নন্দ্য”|মারজিয়া তুজ জাহরা

বাবা মায়ের ইচ্ছা ছিল ডাক্তার হই। ছোট থেকে আমার পড়াশোনায় অনেক ভীতি কাজ করতো। আমার ভালো লাগতো দূর থেকে মায়ের সেলাই দেখা, ছোট ছোট কাপড়ে মাকে লুকিয়ে সেগুলোতে ফুল তোলা। একবার তো মায়ের শাড়ির একটা অংশ কেটে তাতে সেলাই করেছিলাম। এই হলাম আমি, নাম মারজিয়া তুজ জাহরা। পড়াশোনা রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজকর্মে স্নাতকোত্তর। বর্তমানে রাজশাহীতে বসবাস।

রাবিতে পড়াশোনার পাঠ চুকিয়ে ২০১০ সালে অনলাইনের মাধ্যমে একটা গ্রুপ অফ কোম্পানিতে চাকরি পেয়ে ঢাকায় চলে যাই। তারপর বিয়ে, মেয়ে হওয়া শারীরিক কিছু কম্প্লিকেশন থাকায় দেড় বছরের চাকরি ছেড়ে মেয়েকে নিয়ে ব্যস্ত হয়ে যাই। সেই সময়টাকে কাজে লাগাতে গ্রাফিক্স ডিজাইন কোর্স করি। কোর্সের শেষের দিনটিতে মিরাকেলি সিনিয়র গ্রাফিক ডিজাইনার হিসেবে ক্রিয়েটিভ কিটেন্সে চাকরি পেয়ে যাই। ডিজাইনার হওয়া টা আমার কাছে ছিল স্বপ্নের মত। আমার এখনকার বিজনেসের হাতে খড়ি। এর মধ্যে দ্বিতীয় কন্যা পৃথিবীতে আসে। মেয়েদের ঘিরেই তখন আমার জীবন । চাকরির পাশাপাশি মেয়েদের পছন্দে কেক নিয়ে বেশ কিছু কাজ করি। একটানা ল্যাপটপ ব্যবহারে চোখ, হাতে ব্যাথা সহ কিছু প্রবলেমে বেশ কঠিন ভাবে পড়ি। পাঁচ বছর চাকরির পর স্বপ্নের চাকরিটা ছেড়ে দিতে হয়।

মেয়েদের সাথে চলে তখন আমার শখের ছবি আঁকা আকি। বড় কন্যা ভীষণ উৎসাহ দিত। ওকে খুশি করাতে তাই যা পেতাম আঁকতে শুরু করি। এক সময় কাপড়ে নিজের জন্য কয়েকটা ব্লাউজে আঁকি। সেটা ফেসবুকে দেবার পর অনেকেই প্রশংসা করেন। এক বান্ধবী তো হুট করে একটা ব্লাউজ অর্ডার করে ফেলে। ইচ্ছেটা দ্বিগুণ বেড়ে যায়।
পেজ খুলতে তো পয়সা লাগে না, পরে ডিলিট করে দেবো এই ভাবনা নিয়েই নন্দ্য নামের পেজটা পহেলা নভেম্বর ২০১৯ ওপেন করি। একটা দুটো করে সেল হয় আর আমার সাহস বাড়ে। পেজের ওয়ান ম্যান আর্মি আমি। কাপড় কেনা, মাপ মতো কাপড় কাটা, সেগুলো সেলাই(পাঞ্জাবি ছাড়া), বিভিন্ন রঙে রাঙানো, হ্যান্ড পেইন্ট করা, ব্লক প্রিন্ট করা, ছবি তোলা, পেইজ মেইনটেন, ডেলিভারি এক হাতে করি।
উইতে জয়েন আছি ১৫/১০/২০১৮ থেকে। পেজ ওপেন করার পর থেকে নিয়মিতভাবে পোস্ট করা শুরু করি। আলহামদুলিল্লাহ অনেক অর্ডার আসে। খুব আস্তে ধীরে হলেও পুরো এক বছরে লাখপতি হওয়ার সৌভাগ্য হয়।

লকডাউনে উদ্যোক্তা মেলার সাথে যুক্ত হই। সেখানকার মডারেটর নিযুক্ত হই। উদ্যোক্তা মেলায় আলহামদুলিল্লাহ আমার অনেক পরিচিতি বাড়ে।
সেখানেও মোটামুটি অর্ধলক্ষ টাকার বেশি সেল হয়।

সময়ের সাথে অভিজ্ঞতা বাড়ছে। কাস্টমার ডিলিং আগে থেকেই বেশ ভয়ের ছিল আমার জন্য। এখন অনেকটাই সাবলীল হয়েছি। কাজ করতে করতে পাইকারি কাপড়, রং এর অনেক সোর্স পেয়েছি। কাস্টমার হিসেবে অনেক ভালো কিছু মানুষের সান্নিধ্য পেয়েছি।

একটা প্রবাদ আছে না, গাইতে গাইতে গায়েন আমি এমন। যখন যা মনে হয়েছে লেগে থেকে থেকে সেটা রপ্ত করেছি। সৎ ভাবে কাজ করতে চাই। ভবিষ্যৎ নিয়ে খুব বেশি ভাবতে পারিনা। মানুষ হিসেবে আমি ক্ষণজন্মা। তাই আল্লাহ যেমনটি রেখেছেন তাতেই সন্তুষ্ট।

Page link- https://www.facebook.com/Nandyabd/

Page link- https://www.facebook.com/timanza786/


S.Z.PRINCE

facebookhttps://web.facebook.com/S.Z.PRINCE

WhatsApp no. 01684722205

Magazine page: https://web.facebook.com/TSMEntrepreneursMagazine

আপনিও আপনার গল্প শেয়ার করতে চাইলে আমাকে ম্যাসেজ করতে পারেন।